সাতক্ষীরায় মহানবী ও পবিত্র কুরআন নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য: যবিপ্রবি’র শিক্ষার্থী মিঠুন গ্রেপ্তার

সাতক্ষীরায় মহানবী ও পবিত্র কুরআন নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য: যবিপ্রবি’র শিক্ষার্থী মিঠুন গ্রেপ্তার




সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা:) ও পবিত্র ধর্মগ্রন্থ আল কুরআন নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করায় দেবহাটা থেকে মিঠুন কুমার মন্ডল (২০) নামের এক শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃত মিঠুন মন্ডল দেবহাটা উপজেলার সখিপুরের নারিকেলি গ্রামের জুগল মন্ডলের ছেলে ও যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং ডিপার্টমেন্টের প্রথম বর্ষের ছাত্র। সোমবার ভোররাতে পুলিশের একটি দল নারিকেলি গ্রামের বাড়ী থেকে মিঠুনকে গ্রেপ্তার করে।
এরআগে রবিবার দেশের চলমান ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে ফেসবুকে দেয়া এক ব্যাক্তির প্রতিবাদী স্ট্যাটাসে অভিযুক্ত মিঠুন মন্ডল তার ব্যাক্তিগত ফেসবুক আইডি থেকে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা:) ও পবিত্র আল কুরআন সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করেন। তাৎক্ষনিকভাবে তার মন্তব্যটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতসহ ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল শ্রেনি-পেশার মানুষের মধ্যে চাঁপা ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে বিষয়টি সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমানের নজরে এলে ভোররাতেই অভিযুক্ত মিঠুন মন্ডলকে গ্রেপ্তার করে হেফাজতে নেয় পুলিশ।

এ ঘটনায় উপজেলাব্যাপী আলোচনা-সমালোচনা এবং মানুষের মাঝে চাঁপা ক্ষোভ সৃষ্টি হলেও, গ্রেপ্তারের আগে আপত্তিকর ওই মন্তব্যটি মুছে ফেলাসহ মন্তব্যের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করে ফেসবুকে দেয়া মিঠুন মন্ডলের আরেকটি পোষ্টের স্ক্রিনশর্ট ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে এবং স্পর্শকাতর এ ঘটনায় তাৎক্ষনিক ভাবে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করলে মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে আসে। এমনকি ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের ঘটনায় জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে তাৎক্ষনিক পদক্ষেপ গ্রহন এবং অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারসহ পুলিশ হেফাজতে নেয়ায় সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান ও দেবহাটা সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার শেখ ইয়াছিন আলীকে ধন্যবাদ জানিয়েছে সকল শ্রেনি পেশার মানুষ।

এদিকে মহানবী (সা:) ও পবিত্র কুরআনকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করার বিষয়টি যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষের নজরে আসার পর সোমবার সকালে যবিপ্রবি’র কার্যালয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনস কমিটি, শিক্ষক সমিতি, কর্মকর্তা সমিতির জরুরী সভায় অভিযুক্ত শিক্ষার্থী মিঠুন মন্ডলের ছাত্রত্ব বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। একই সাথে মিঠুন মন্ডলের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষের পক্ষ থেকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে পৃথক মামলা দায়েরসহ এবিষয়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীতে সহায়তা প্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সহকারী পুলিশ সুপার শেখ ইয়াছিন আলী জানান, আপত্তিকর মন্তব্যের পরপরই অভিযুক্ত শিক্ষার্থী মিঠুন মন্ডলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। মামলা দায়ের পরবর্তী তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে। বিষয়টি স্পর্শকাতর হওয়ায় সার্বিক দিক বিবেচনা করে পুলিশ ঘটনার তদন্ত করছে বলেও তিনি জানান।

বার্তা প্রেরক
মোঃখলিলুর রহমান
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি







মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন